পড়শি যদি আমায় ছুঁতো যম যাতনা সকল যেত দূরে: লালন সাঁই

পড়শি যদি আমায় ছুঁতো যম যাতনা সকল যেত দূরে: লালন সাঁই

hhhhhhhhhhhhhh

পুরানো লেখাগুলি

হিন্দুত্ববাদী রাজনীতির ইসরায়েল প্রীতির কারণ।

ভারতীয় জনতার ইসরায়েল প্রীতি এবং প্যালেস্তাইন বিরোধী জনমত গঠনে হিন্দুত্ববাদী রাজনীতির ভূমিকা এই নিয়ে আলোচনা করলেন সঞ্চারী পাল।

কাগজ

কৌতুক তখনই বেদম হাতিয়ার হয়ে উঠতে পারে, যখন – অথবা বেশিরভাগ সময়েই – সে লুকিয়ে রাখে আক্রমণের লক্ষ্যকেও – কিংবা বলা যায় চাঁদমারিকে যখন সে পাশ কাটিয়ে চলে যায়।

মুড অফ দ্য নেশন - ৩৭০ না ২২০?

মজা হলো মুড অফ দ্য নেশন কখন যে পালটে যায়, বুঝতেই পারবেন না, বা বলা যাক আসল মুড অফ দ্য নেশন ঠিক বেরিয়ে আসবে তাকে রামলালা দিয়ে ঢেকে রাখা যাবে না। আর মানুষের মেজাজ? দেখে নিন ছবিটা, মুসোলিনি আর তাঁর প্রেয়সী ঝুলছে, মেরে ক্ষান্ত হয়নি ইটালির জনগণ, তাকে উলটো করে ঝুলিয়েছে। এবং সবাই জানে তার মাত্র দু তিন বছর আগে মুসোলিনীকে দেখলে মানুষ হাত তুলে সেলাম জানাতো, জানতে বাধ্য হতো, সেলামটাকেই মুড অফ দ্য নেশন ভেবে নিলে চাপ আছে স্যর।

এই গরমে মুখোশ পরে থাকা সত্যিই অসম্ভব!

সাইকেল থেকে নেমে হাতের সামনে পেয়েই চটাদাকে যখন প্রশ্ন করলাম, আমাদের বিকাশ পিএম এখন এত ঘন ঘন সাম্প্রদায়িক হুঙ্কার দিচ্ছেন কেন, ওনার সাফ জবাব, কেন আবার? এই গরমে কারও পক্ষে টানা মুখোশ পরে থাকা সম্ভব? মুখোশ মানে? কোনটাকে মুখোশ বলছেন আপনি?

বদলতে রিস্তে

খুব উপকার হল দাদা। কিন্তু এটা যে বদলে দিতে হবে একটু। নিতে চায় না কেউ আসলে... গলা খাদে নেমে এল লোকটার। চোখ না তুলেই বলছিল কথাগুলো।

মাছ, মাংস, মুগল, মঙ্গলসূত্র, মুসলমান বনাম সম্পদের পুনর্বন্টন নিয়ে বিতর্ক

মাছ, মাংস, মুগল, মঙ্গলসূত্র, মুসলমান বনাম সম্পদের পুনর্বন্টন: মেরুকরণের রাজনীতি বনাম আর্থিক বৈষম্য এই পাঁচটি 'ম' আমাদের দেশের রাজনীতিতে সর্বোচ্চ আলোচিত বিষয়। কেন নরেন্দ্র মোদী এই মেরুকরণের রাজনীতি করছেন, লিখলেন অমিত দাশগুপ্ত।

ধনীতম এক শতাংশের সম্পত্তির আংশিক পুনর্বন্টন কীভাবে সম্ভব (২)

দেশের মোট জনসংখ্যার মাত্র এক শতাংশ যে অতিধনী আছেন, তাঁদের সম্পত্তির অল্প কিছু অংশ সরকার কর বা অন্যান্য উপায়ে নিয়ে তা কি সাধারণ মানুষের কাজে লাগানো সম্ভব? প্রশ্ন তুলেছেন শমীক সরকার। এটি দ্বিতীয় কিস্তি।

ধনীতম এক শতাংশের সম্পত্তির আংশিক পুনর্বন্টন কীভাবে সম্ভব (১)

দেশের মোট জনসংখ্যার মাত্র এক শতাংশ যে অতিধনী আছেন, তাঁদের সম্পত্তির অল্প কিছু অংশ সরকার কর বা অন্যান্য উপায়ে নিয়ে তা কি সাধারণ মানুষের কাজে লাগানো সম্ভব? প্রশ্ন তুলেছেন শমীক সরকার।

আরও পুরানো লেখাগুলি

শিক্ষক নিয়োগের প্যানেল বাতিল: কিছু কথা

রাজ্য সরকার যোগ্য প্রার্থীদের তাদের ঢাল হিসাবে ব্যবহার করতে চাইছেন প্রথম থেকেই। এখনও যখন এসএসসি সুপ্রিম কোর্টে যাচ্ছে, তখন সে যাচ্ছে পুরো রায়কে চ্যালেঞ্জ করে। ‘অযোগ্যদের চাকরি যাক, কিন্তু যোগ্যদের চাকরি যেতে দেব না’, এই কথা তার স্পষ্ট ভাবে বলা উচিত ছিল। এমতাবস্থায় যোগ্য প্রার্থীদের আলাদা করে, ব্যক্তিগত ভাবে সুপ্রিম কোর্টে এই রায়কে চ্যালেঞ্জ করা উচিত বলে মনে হয়। ঠগ বাছতে গাঁ উজার যেমন ঠিক নয়, তেমনি দুর্নীতি ঢাকার চেষ্টাও কোনও কাজের কথা নয়।

কাফিল খান: এক মানবিক ডাক্তারের ন্যায় যুদ্ধের কথকতা

আজ এই কর্পোরেট শাসিত চিকিৎসা ব্যবস্থায় মুনাফা যখন সমস্ত আলোচনার ভরকেন্দ্রে তখন নর্মান বেথুন, দ্বারকানাথ কোটনিশের পথ ধরে আজও কিছু চিকিৎসক জেগে থাকেন মানবতার উজ্জ্বল প্রহরী হয়ে। আদিবাসী মানুষদের অধিকার রক্ষার সওয়ালের জন্য বিনায়ক সেনকে রাষ্ট্রদ্রোহিতার অভিযোগে জেলে পোরা হয়। সংখ্যায় সামান্য হলেও এই চিকিৎসকরা আজও আমাদের ভরসা। এইরকমই এক চিকিৎসকের নাম কাফিল খান।

আখ্যান

কাফিল খান: এক মানবিক ডাক্তারের ন্যায় যুদ্ধের কথকতা

আজ এই কর্পোরেট শাসিত চিকিৎসা ব্যবস্থায় মুনাফা যখন সমস্ত আলোচনার ভরকেন্দ্রে তখন নর্মান বেথুন, দ্বারকানাথ কোটনিশের পথ ধরে আজও কিছু চিকিৎসক জেগে থাকেন মানবতার উজ্জ্বল প্রহরী হয়ে। আদিবাসী মানুষদের অধিকার রক্ষার সওয়ালের জন্য বিনায়ক সেনকে রাষ্ট্রদ্রোহিতার অভিযোগে জেলে পোরা হয়। সংখ্যায় সামান্য হলেও এই চিকিৎসকরা আজও আমাদের ভরসা। এইরকমই এক চিকিৎসকের নাম কাফিল খান।

শিক্ষক নিয়োগের প্যানেল বাতিল: কিছু কথা

রাজ্য সরকার যোগ্য প্রার্থীদের তাদের ঢাল হিসাবে ব্যবহার করতে চাইছেন প্রথম থেকেই। এখনও যখন এসএসসি সুপ্রিম কোর্টে যাচ্ছে, তখন সে যাচ্ছে পুরো রায়কে চ্যালেঞ্জ করে। ‘অযোগ্যদের চাকরি যাক, কিন্তু যোগ্যদের চাকরি যেতে দেব না’, এই কথা তার স্পষ্ট ভাবে বলা উচিত ছিল। এমতাবস্থায় যোগ্য প্রার্থীদের আলাদা করে, ব্যক্তিগত ভাবে সুপ্রিম কোর্টে এই রায়কে চ্যালেঞ্জ করা উচিত বলে মনে হয়। ঠগ বাছতে গাঁ উজার যেমন ঠিক নয়, তেমনি দুর্নীতি ঢাকার চেষ্টাও কোনও কাজের কথা নয়।

মোদীর বি জে পি না রাহুলের কংগ্রেস: নির্বাচনী প্রতিশ্রুতিতে এগিয়ে কে?

২০২৪ এর জাতীয় কংগ্রেস ২০০৯ সালের কংগ্রেসের চেয়ে অনেক বেশি উন্নত, সাধারণ মানুষের অনেক বেশি কাছের। রাহুল গান্ধী ভারত জোড়ো যাত্রায় প্রত্যক্ষ করেছেন গরিব খেটে খাওয়া মানুষের যন্ত্রনা। তারই প্রকাশ ঘটেছে কংগ্রেসের এবারের নির্বাচনী ইশতেহারে। ওদিকে বিজেপির নির্বাচনী ইশতেহারের নাম ‘মোদির গ্যারান্টি’। মূলত সাংস্কৃতিক জাতীয়তাবাদকে ভিত্তি করে বি জে পি- র এবারের সংকল্প পত্র। ১৪ টি বিষয়ে তারা জোর দিয়েছে। একটি তূলনামূলক বিশ্লেষণ রাখলেন দেবাশিস মিথিয়া।

লেনিন ও সমাজতন্ত্রের জন্য সংগ্রাম

‘ইম্পিরিয়ালইজম : দ্য হায়েস্ট স্টেজ অব ক্যাপিটালিজম’ নামক বইতে লেনিন দেখান সাম্রাজ্যবাদের আমলে দেখা দেয় বড় বড় একচেটিয়া কারবার ও পুঁজিপতিদের জোট। এই সাম্রাজ্যবাদকে তাই লেনিন বলেন একচেটিয়া পুঁজিবাদ। বিশ্বের কাঁচামালের উৎস, পণ্যোৎপাদন ও বাজারের একটা বৃহৎ অংশ দখল করে নেয় একচেটিয়া মালিকেরা। বুর্জোয়া রাষ্ট্রের অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক জীবনে প্রভুত্ব করতে থাকে তারা, সরকারগুলির ওপর নিজেদের অভিপ্রায়কে চাপিয়ে দেয়। আজ ভ্লাদিমির ইলিচ লেনিনকে আবার পড়া জরুরি।

শুভমনের গল্প

---- দাও, কাগজের প্রথম পাতাটা দাও তো। শুভমনের সেঞ্চুরির খবরটা একবার দেখি। স্বপ্নময়ের দিকে হাত বাড়িয়ে দিল শুভমন।

মনকে নিয়ন্ত্রণের প্রতিযোগিতা—নিউরালিঙ্ক ব্রেন চিপ

চুপিসাড়ে সম্পূর্ণ এক নতুন উপনিবেশবাদ আসতে চলেছে। আসবে তা অবশ্যই। আর সেই সুযোগে দখল নেওয়া হবে মস্তিষ্কের। মানুষের জীবনকে নিয়ন্ত্রণ করার দীর্ঘদিনের ষড়যন্ত্রের অন্তিম সীমানায় পৌঁছে যাবে এই প্রকল্প। সিলিকন ভ্যালির এই প্রকল্পের মূল কাজ হবে মানুষের মনে উপনিবেশ গেড়ে ভাবনার নিয়ন্ত্রণকে মুঠোয় নেওয়া।