পড়শি যদি আমায় ছুঁতো যম যাতনা সকল যেত দূরে: লালন সাঁই

পড়শি যদি আমায় ছুঁতো যম যাতনা সকল যেত দূরে: লালন সাঁই

hhhhhhhhhhhhhh

বিভেদ-বিদ্বেষের রাজনীতির পৃষ্ঠপোষকতায় চালিত গণপ্রহারের প্রবণতাকে লক্ষ্মণরেখায় আবদ্ধ করে রাখা অসম্ভব। গণপ্রহারের প্রবণতা আসলে সামাজিক বিচারধারার এক বিকৃতি। তাতে সমাজের যে অংশটা জড়িত, তারা সামাজিক প্রবণতার বাইরে নয়। ফলে রাজনৈতিক স্বার্থের বাইরেও তারা এরকম সংগঠিত অপকর্ম চালাবে। তাদের প্রতি শাসকশক্তির পক্ষপাতিত্ব থাকবে, এটা যখন নিশ্চিত, তখন তারা বেপরোয়াই হবে।

Read more

by মনসুর মণ্ডল | 30 April, 2020 | 630 | Tags : mob lynching palghar


হরিচরণের কথা অনুযায়ী, পাঁঠা ‘বলদ মহিষ বকরা’ যা খুশি হতে পারে। তবে মাথায় রাখবেন এই নিরামিষ রান্নায় মানুষের মাংস নিলে চলবে না। বলদ, মোষ, পাঁঠা বা খাসিই নিতে হবে। কেন? মানুষ হল সৃষ্টির শ্রেষ্ঠ জীব, তারা ভদ্র, রাজনৈতিক ও অর্থবান প্রাণী। বলির পাঁঠা বলে যাদের উল্লেখ করা হল তারা হল ইতর প্রাণী। তাদের অর্থ বা বিত্ত নেই। তাদের জীবন অর্থহীন বা তাৎপর্যহীন।

Read more

by শামিম আহমেদ | 29 April, 2020 | 501 | Tags : sacrifice recipes


আমাদের সিদ্ধান্তই বলে দেবে মানব প্রজাতির ভবিষ্যৎ কী, আমরা কি ডাইনোসরদের মত হব, যারা আকারে সুবিশাল ছিল কিন্তু এই গ্রহের জলহাওয়ার পরিবর্তনের সাথে টিকে থাকার ক্ষমতা তাদের একেবারে ছিল না, নাকি আমরা সেইসব ব্যাকটেরিয়াদের মত হব, যারা অন্যান্য জীবিত প্রাণী বা উদ্ভিদের সঙ্গে বোঝাপড়া করেই টিকে গেছে লক্ষ লক্ষ বছর।

Read more

by অনুপম শরাফ | 29 April, 2020 | 582 | Tags : corona world


আর্টিকেল ১৪ বলে একটি ওয়েব পত্রিকাতে এই লেখাটি বেড়িয়েছে কিছু দিন আগে, যেখানে প্রশ্ন করা হয়েছে লকডাউন কি আদৌ জরুরী ছিল? আর কোনও উপায় কি ছিল না? সংক্রমণ ঠেকানোর জন্য আর কি করণীয় ছিল আইসিএমআর কি বলেছে? গবেষণা কি বলেছে? লিখেছেন নীতিন শেঠী। আমরা সহমনের পক্ষ থেকেও একই প্রশ্ন রাখলাম।

Read more


কেবল ভ্রমনের সঙ্গে যুক্ত প্রায় ৯ কোটি জনতার কী হইবে? ২০১৫-১৬ সালে জিডিপিতে ভ্রমণ শিল্পের অংশ ছিল ৫.২%। ২০১৭-১৮ সালে ওই শিল্পে প্রত্যক্ষ ভাবে কর্মরত ছিল ৩.৫৪ কোটি মানুষ, পরোক্ষ ভাবে কাজ করতেন ৪.৫৬ কোটি কর্মচারী, মোট ৮.১১ কোটি ভ্রমণ শিল্পে জীবিকা নির্বাহ করতেন, যা ভারতবর্ষে মোট নিয়োগের ১২.৩৮% ছিল। অনুপাত যাই হোক না কেন, গত দুবছরে সংখ্যাটা বেড়েছে বই কমে নি। ফলে কোভিড ১৯ জনিত আতঙ্ক, যা লকডাউনের ফলে ব্যাপকতা লাভ করেছে, সরাসরি প্রায় ৯ কোটি কর্মচারীর জীবন ও জীবিকাকে বিপন্ন করে তুলেছে।

Read more


শুকনো লাল। লঙ্কার নাম কেন ‘লঙ্কা’ তা নিয়ে বহু তত্ত্ব খাড়া করা যায়। উবশ্যই অস্তিত্বের সঙ্কটকে বাঁচিয়ে। সোনার লঙ্কার নাম এ দেশের বহু প্রাচীন সাহিত্যে পাওয়া যায়। কিন্তু যে লঙ্কা ঝাল, যা মানুষকে দু বার জ্বালায়—এক বার খাওয়ার সময় আর অন্যটা মলত্যাগের কালে, সেই লঙ্কা হল ঝাল বা কটু।

Read more

by শামিম আহমেদ | 27 April, 2020 | 422 | Tags : chilli mutton


হুতোমের ওয়ার্ক ফ্রম হোম হয়েচে। সম্পাদক কোরোনায় ভুগচে, তবে গিন্নী আর কন্যের হয়নি। ভাগ্যে গিন্নীকে চুমো খাওয়ার সমন্দ অনেককাল চুকে গিয়েচে! তবে সম্পাদকের এম্নি আতঙ্ক, সে হুতোমকে বলেচে কোতাও যাওয়া হবে না। যত বলি ভূতের ছোঁয়া লাগে না, ভাইরাস হাজির হবে কোতা হতে? কান দেয় না। তা দেশে যা রঙ্গ হচ্চে, ঘরে বসেই নকশা লেকা চলতে পারে। কয়েকটি হুতোম বয়ান কচ্ছেন।

Read more


‘তেহারি’ খেয়েছেন কখনও? তেহারি, তেহেরি, তেয়ারি নানা নামে ডাকে হয় একে। গুগল সার্চ করলে পেয়ে যাবেন। কিন্তু মনে রাখতে হবে, তেহারি হল নিরামিষ খাবার। তেহরি শ্রীলঙ্কা বা ভারতের কোনও স্থান নয়। তেহরি হল এক ধরণের খাবার। মূল মশলা হলুদ। ভাল খেতে। পেটের রোগে ভোগেন যাঁরা তাঁরাও খেতে পারেন। সুস্বাদু। মূল মশলা হলুদ। তেহরি ভ্রমণের অভিজ্ঞতা শোনা যাক।

Read more

by শামিম আহমেদ | 26 April, 2020 | 525 | Tags : tehri vegetarian food


কলকাতা সহ এই রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় ছোটো বড় যে লালবাতি এলাকা গুলো আছে সেগুলোতে প্রায় ষাট হাজার কমার্শিয়াল সেক্স ওয়ার্কার বসবাস করে। লকডাউনে আমরা কি ভাবছি তারা কিভাবে বেঁচে আছে বা থাকছে? নাকি আমাদের শহুরে জীবন যাপনের বিলাসিতা তাদেরকে আরও প্রান্তিকতর জায়গায় দাঁড় করিয়ে দিচ্ছে বা দিতে চলেছে।

Read more


রেশনে গম দেয়, চালও। বন্ধুদের বাড়িতে খেয়ে দেখেছি, বেশ ভাল খেতে। পয়লা রোজার দিন এই সব বলার কী মানে? গমের সঙ্গে (যদি থাকে) একটু ডাল, সঙ্গে খানিকটা চাল দিয়ে তৈরি করা যায় অপূর্ব এক খাবার। গরিবের খাদ্য। শস্তার দু এক টুকরো মাংস তাতে দিতে পারলে আরও ভাল। না পেলেও চলবে, দুধের স্বাদ ঘোলে মেটানোর মতো সয়াবিন চলতে পারে। হ্যাঁ, একটু সহিষ্ণু হয়ে রান্না করতে হয় পদটি। হালিম।

Read more


করোনা ভাইরাস থেকে দুর্ভিক্ষে বেশি মানুষ মারা যাবেন। তাই এই লকডাউন থেকে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব বেরোনো দরকার এবং তার জন্য দরকার একটি সুস্পষ্ট পরিকল্পনা যার মূলে থাকবে অনেক বেশি সংখ্যক এবং সঠিকভাবে করা পরীক্ষা যার দ্বারা সংক্রমিত মানুষদের দ্রুত চিহ্নিত করে আলাদা করার ব্যবস্থা করা যাবে।

Read more


বিজ্ঞান-প্রযুক্তিতে ভারত বর্তমানে ভালই এগিয়েছে। উন্নত চিকিৎসা-পদ্ধতি হাতে আছে। তার একটা প্রভাব মানুষের মধ্যে থেকেই যায়। কিন্তু দেশের শাসক শিবির ও ধর্মীয় জগতের গুরুস্থানীয় অনেকের পাকা মাথা করোনা নিয়ে কুসংস্কার ও অপবিজ্ঞানের ফেরি শুরু করেছে। এই পরিস্থিতিতে দেশে বর্তমান জনস্বাস্থ্যের অব্যবস্থায় আমাদের গ্রামের কথা ভেবে মনে আশঙ্কা একটা জাগে বৈকি।

Read more


খদ্দেরবিহীন বন্ধ ঘরগুলোয় অলস ভাতঘুমের আবহ। তবু শাম্তি নেই। স্বপ্নে চেনা খদ্দেরদের মুখগুলোও ভাসছে। নির্জন খাটের স্বপ্নে আর একটা অবয়বের সান্নিধ্য। লকডাউনে খদ্দের আসা বন্ধ হওয়ার আগে অনেক যৌনকর্মীই খদ্দেরদের কাজের আগে নিয়ম করে সাবানে হাত ধোয়ানো বা হাতে স্যানিটাইজার লেপার দায়িত্ব পালন করছিলেন। কেমন আছেন যৌনকর্মীরা?

Read more


নিত্য-প্রয়োজনীয় জিনিস পেতে গেলে নিত্য যেটি প্রয়োজন তা হল কাজ আর অর্থের যোগান। কারণ এই অতি সাধারণ মানুষগুলির নিত্য খাদ্য তালিকার মধ্যে যা যা লাগে তার অনেকটাই বাজার নির্ভর। খাদ্য ও অর্থ সুরক্ষার সামঞ্জস্য না থাকলে বজবজ-মহেশতলা অঞ্চলের এইসব অনিত্য-প্রয়োজনীয় শিল্পের সঙ্গে যুক্তশ্রমজীবি মানুষগুলি ভাত ফুটোবে কী উপায়ে?

Read more


বিশ্বে বিস্ময় জাগিয়ে চীন করোনার গ্রাস থেকে মুক্ত। পশ্চিমী দুনিয়ায় শক্তিশালী পুঁজিবাদী দেশগুলিতে করোনা মহামারিতে জনজীবন বিধ্বস্ত। কী বার্তা বয়ে আনে এই বৈপরীত্য?

Read more

by মনসুর মণ্ডল | 18 April, 2020 | 806 | Tags : corona lockdown china


করোনা যখন আমাদের মধ্যে ভেদাভেদ মিটিয়ে সামাজিক দূরত্ব নয়- শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখতে নির্দেশ দিচ্ছে, তখন এক শ্রেণীর মানুষ সোশ্যাল মিডিয়া বা ফেসবুকে সত্যি সত্যি সামাজিক দূরত্ব বাড়িয়ে তুলতে অতি তৎপর হয়ে উঠেছে।

Read more


কবে এই ভাইরাসের আক্রমণ থেকে আমরা মুক্তি পেয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরব তা বলা দুস্কর হলেও এটা বলাই যায় যে, অর্থনীতির উপরে দু:সহ আঘাত আসতে চলেছে। পুঁজির বিশ্বায়নপরবর্তিতে এত বড় ঘটনা ঘটেনি। তাই অর্থনীতিতে এর কী প্রভাব পড়বে তা বলা অসম্ভব।কোরোনার প্রভাব যোগান ও চা্হিদা দুদিকেই পড়বে। আগে অর্থনৈতিক মন্দা এসেছে, উৎপাদনে মন্থরতা এসেছে কিন্তু এভাবে আক্ষরিক অর্থেই উৎপাদন বন্ধ হয়ে যাওয়া ভাবাই যায় নি।

Read more

by অমিত দাশগুপ্ত | 15 April, 2020 | 713 | Tags : corona economy


আপনার ঘরে মুসলমানের ছেলে ঠাঁই পায় কী করে?’ উত্তরে তিনি বলেছিলেন, ‘কে হিন্দু আর কে মুসলমান- আমি তার কী জানি! আমি তো ঠাঁই দিই আমার স্নেহকে, আমার ভালবাসাকে ...।’

Read more


অবশ্যই এই সময়ে সব থেকে জরুরী মানুষের খিদে নিয়ে কথা বলা। কিন্তু অসংখ্য মানুষ যে ঘোরের মধ্যে থেকে খিদের কথা, অধিকারের কথা , একসাথে বাঁচার কথা বলতে ভুলে গেল সেই নেশার দ্রব্যটি নিয়েও কথা হোক।

Read more


ফেসবুকে ঢেউ উঠেছে: লকডাউনে চোট-খাওয়া ছোট পুঁজির বাইরের ব্যবসায়ীদের থেকে জিনিসপত্র কিনতে হবে আগামী এক বছর। সত্যি? যাঁরা মলবিহারী ও পণ্যাসক্ত নিওলিবারাল বাঙালি– ক্রেতা হিসেবে তাঁদের অজ্ঞতা ও উপেক্ষার জন্যই কি ছোট পুঁজির এই হালত নয়?

Read more


যারা আধার বানিয়েছিল, সেই নন্দন নিলেকনি কিন্তু এই আরোগ্য সেতুর পিছনে অন্যতম মাথা। তাঁরাই ভারতবর্ষে ওই ‘বাহন’ বলে মোবাইল অ্যাপলিকেশন তৈরি করেছিল, যার সাহায্যে দিল্লি দাঙ্গার মতো ঘটনায় বেশ কিছু গাড়ি পোড়ানো হয়েছিল বলে জানা গেছে। তাহলে আসলে কেন্দ্রীয় সরকারের উদ্দেশ্য একটি কেন্দ্রীভুত তথ্য ভান্ডার বানানো যার মধ্যে দিয়ে সে শুধু নাগরিকদের নজরদারি করবে আর কিছু নয়।

Read more


পাকিস্তানে ঘৃণা করতে শেখানো হয় একটি নামকে – চার্লস ডারউইন। স্কুলশিক্ষক এবং ইউনিভার্সিটি প্রফেসর, যাদের কাজ ডারউইনের বিবর্তনবাদ পড়ানো, তাঁরা হয় এই বিষয়টিকে বাদ দিয়ে যান অথবা অবজ্ঞাভরে বিষয়টিকে খানিক মোলায়েম করে পরিবেশন করেন। করোনার সঙ্গে কি সম্পর্ক তাঁর?

Read more


ছেলেবেলার শবেবরাতগুলো ছিল বেশ আদরের। সকালে শীতের আমেজ। রোদ ঝলমল। বিকেলে হাল্কা ঠান্ডার উলের হাফ সোয়েটার। রমজান মাস আসছে।তারই আনন্দমুখর ট্রেলার শবেবরাত। স্মৃতিগুলো আজও মনে বাসা করে আছে। ক্ষণে ক্ষণে ঝিলিক দেয়। মনের অতল গভীরে আবার মিলিয়েও যায়। মধুর স্মৃতি, আবার বেদনারও বটে। এ বেদনা মধুরতাগুলো নতুন করে ফিরে না পাবার বেদনা। এ বেদনা কাঁদায় না। শিহরণ জাগিয়ে যায়।

Read more


কেউ যদি বেশি খাও, খাওয়ার হিসেব নাও, কেননা অনেক লোক ভালো করে খায় না। এই সময়ে অনেকেই হয়তো খাচ্ছেন আবার অনেকেই পাচ্ছেন না, তাই তাঁদের জন্য আপনার খাবারের ছবিটা আর নাই বা দিলেন। ছবি কৃতজ্ঞতা ঃ শামিম আহমেদ

Read more


করোনা নিয়ে মানুষের মনে যে ভয় তৈরি হয়েছে তা থেকে বের করার সঠিক এবং বিজ্ঞানসম্মত পদ্ধতি সামনে আনতে হবে, তার বদলে অন্ধ কুসংস্কার যা দেশকে আরও পিছিয়ে দিচ্ছে সেই কর্মকাণ্ডকে রাষ্ট্র যদি প্রশ্রয় দেয় তা হলে করোনার বিরুদ্ধে লড়াই হঠাৎ করে ক্রিকেট খেলার উন্মাদনায় পরিণত হবে এবং মানুষ তাঁর নির্বুদ্ধিতার পরিচয় দিয়ে একটি শোকস্তব্ধ পরিবেশকে হঠাৎ উৎসবে পরিণত করে ফেলবে, তাতে হিতে বিপরীতই হবে।

Read more


বর্তমানের এই সংকট-মুহূর্তে, আর ট্রাম্পের মতো এক গুণ্ডার ধমকির মধ্যেও, বেঙ্গল কেমিক্যালের মতো একটি 'নন-প্রায়োটিরিটি সেক্টরের’ সরকারি সংস্থাও ১০ লাখ হাইড্রোক্সিক্লোরোকুইন ট্যাবলেট সরবরাহ করার ক্ষমতা রাখে। (তথ্যসূত্র – লিংকঃ 8) আমরা থালি বাজাই আর বাতি জ্বালাতে থাকি!

Read more


আমাদের মুক্তি এনে দেয় একমাত্র মৃত্যু। তাই হয়ত আমরা সবকিছুতেই উৎসব খুঁজি। সেটা জন্ম হোক কিংবা মৃত্যু। তাইতো এই করোনাকালে রাষ্ট্র তালি বাজাতে বললে আমরা অতি উৎসাহে থালি বাজাই। রাষ্ট্র মোমবাতি জ্বালাতে বললে বাজি-পটকা ফাটাই।

Read more


সাম্প্রতিককালে ধর্মীয় রীতি-আচার তার দস্তুর হারিয়ে গণউন্মাদনার চেহারা নিয়েছে। ধর্মীয় সংস্কৃতির বহু কিছু আরোপিত মতান্ধতার বিকার ও অসহিষ্ঞুতা প্রদর্শনের বিষয়বস্তুতে পরিণত হয়েছে। মানুষের সংস্কার-প্রবণতার চোরাপথে ইতিহাস-সাক্ষী কুসংস্কারের নবায়ন হচ্ছে। এসবকিছু সংখ্যাগুরুর ধর্মাচরণে প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ রাজনৈতিক যোগসাজশ ও রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতার পরিণাম।

Read more


সেই ঈদের পরে পরে গ্রাম খালি করে গ্রামের লোক চলে গেছিল প্রবাসে, কাজে। আজ লকডাউন হতেই সব ফিরে এসেছে ছুটি পেয়ে। যেন অসময়ের ঈদ গ্রামে।

Read more


অতিমারী, মহামারী, মড়ক, মারী কত নামই যে হয় এই সব ভয়াল সংক্রমণের! নামগুলো এমন কেন? সব কি মরণের ইঙ্গিত? শব্দ বিশ্লেষণে কী উঠে আসে? পৌরাণিক আমলেও কি এমন ভয়াল ছোঁয়াচে রোগ ছিল? মহামারী বা অতিমারী নিয়ে প্রাচীন সাহিত্য কী বলে?

Read more


গল্প বলে যে সব বেদুইন রাভিয়ারা, তারা ঘোড়ায় চেপে আসে, প্রতি বছর, এই ফতে সিং পরগণায়। তাদের সঙ্গে থাকে তাঁবু। আর তিরধনুক, বর্শার মতো নানা অস্ত্র। পশুপাখি শিকারের পর তারা তাঁবু খাটিয়ে সন্ধ্যায় মশাল জ্বেলে গল্প বলে। তাদের সঙ্গে থাকা রমণীরা কখনো নাচগান করে।

Read more

by শামিম আহমেদ | 04 April, 2020 | 1023 | Tags : Short story


খুব বেশি দিন আগের কথা নয়। কোরাসোন দে মারিয়া গ্রামে বাস করত এক বাবা আর ছেলে, দুজনকেই লোকে চিনত এরেমিতে বলে, কেননা দুজনেরই নাম ছিল এউরেমিয়ো। একজন এউরেমিয়ো সেদিয়ো, আর অন্যজন এউরেমিয়ো সেদিয়ো। তাই বলে দুজনের মধ্যে তফাত করতে যে বেগ পেতে হত, এমনটা একেবারেই নয়, কেননা একজন অন্যজনের চেয়ে পঁচিশ বছরের বড়।

Read more


আজ কিছুদিন সবাই বাড়িতে আছেন কিন্তু যারা বছরের বেশীরভাগ দিনই গৃহবন্দী থাকেন সেই মহিলাদের নিয়ে একটি লেখা আজকের করোনার সময়ে যা প্রাসঙ্গিক।

Read more


আসুন আবার সেই আমার ছেলেবেলার ঝড়ের গল্পে ফিরে আসি। খলিলদাদোর আজান, মুলিকাকার মন্ত্রপাঠ এবং আমাদের খুঁটি চেপে ধরে রাখার ফলে কুঁড়েঘরটা সে যাত্রায় বেঁচে গেল। সেই গোলাকার ‘কী একটা’ আমাদের দিকে ধেয়ে এল না, আমাদের পাশ কাটিয়ে ডোমকুল মাঠের বুক চিরে চলে গেল দক্ষিণ-পূর্ব কোনের দিকে। আমাদের কুঁড়েঘর এবং আমরা অক্ষত রয়ে গেলাম। আমরা নিশ্চিন্ত হলাম।

Read more


প্লেগ এবং আজকের করোনা নিয়ে একটা ভাবনা, অথচ কি মিল। আজকের সময়ে দাঁড়িয়ে এই ঘটনার দিকে ফিরে দেখতে গেলে হাসির উদ্রেক হয় না, বরং মিল পাওয়া যায়। সেই সময় কলকাতায় যা যা হয়েছে, আজকেও তাই তাই হচ্ছে। সত্যি কথা বলতে আমরা সকলেই অপেক্ষায় আছি করোনার অনীহার।

Read more


লকডাউনে পড়ে আমাদের অবস্থা এখন ওই ভদ্রলোকের মতো। আমরা আমাদের ঘরে লুকিয়ে বসে আছি। আর করোনারূপী অজগর আমাদেরকে সারা পৃথিবী জুড়ে খুঁজে বেড়াচ্ছে।

Read more

by নীহারুল ইসলাম | 02 April, 2020 | 532 | Tags : corona migrants


আমাদের ভিতরেও একটি গল্প আছে। একটি গানও আছে। সম্প্রীতির গল্প। সম্প্রীতির গান। এককথায় বেঁচে থাকার গল্প, গান। যে গল্প আমরা আমাদের অন্তর থেকে বের করে কাউকে কোনওদিন বলিনি। গানটাও শোনাই নি। তাই আজ তারা সুযোগ বুঝে যে কোনও অজুহাতে বেরিয়ে পড়ছে। শোধ তুলতে আমাদেরকে ধন্দে ফেলছে! সেই ধন্দে আমরা একে অপরের সঙ্গে ঝগড়া করছি। লড়ালড়ি করছি।

Read more


কোনো শালায় খোঁজ রাখেনি কজন গ্যাচে ঘর সব ব্যাটাকে ছেড়ে এবার বেঁড়ে ব্যাটাকেই ধর। --- ফেসবুক কবি

Read more