পড়শি যদি আমায় ছুঁতো যম যাতনা সকল যেত দূরে: লালন সাঁই

পড়শি যদি আমায় ছুঁতো যম যাতনা সকল যেত দূরে: লালন সাঁই

hhhhhhhhhhhhhh

আজ স্পেন বনাম জার্মানি। আজ তিকিটাকা বনাম প্রেসিং ফুটবল।  তিকিতাকার ওষুধ যে বাজারে নেই , তা নয় . তিন ডিফেন্ডার বা চার ডিফেন্ডার , দুই সিস্টেমেই বিশ্বের বড়ো কোচেরা একাধিকবার তিকিতাকা ভেঙেছেন । যেহেতু এই স্পেন টিমের ঘরানা থেকে খেলোয়াড় , অনেকটাই বার্সেলোনা প্রভাবিত , এবং জার্মানি বায়ার্ন প্রভাবিত , ফলে বায়ার্ন বার্সা লড়াইয়ের ইতিহাস থেকে কিছু উদাহরণের দিকে তাকানোই সহজ হবে.। কি হবে আজ?

Read more


ম্যাচের ৬৪ মিনিটে মেসির প্রথম গোল এবং আর্জেন্টিনার অগ্রগমন। দুর্দান্ত গ্রাউন্ড শটে গোলের একদম কোণায় এমনভাবে বলটাকে জায়গায় রাখলেন মেসি যে উড়ন্ত বাজের মত বাজের মত ঝাঁপিয়ে পড়েও বলের নাগাল পেলেন না ওচোয়া। দ্বিতীয় গোলটি ম্যাচের ৮৭ মিনিটে এবং সেটিকে নয়নাভিরাম বলে যায়। এনজো ফার্নান্ডেজের শট মেক্সিকোর রক্ষণভাগকে দাঁড় করিয়ে আবারও উড়ন্ত ওচোয়ার নাগাল এড়িয়ে গিয়ে আছড়ে পড়ল মেক্সিকোর গোলের জালে।

Read more


গোলপার্ক ‘মৌচাকের’ সামনে যখন নামলাম, রোদ্দুর প্রায় নিভে এসেছে। আশেপাশের বাড়িগুলো, দোকানপাট, বিশেষত ফুলের দোকান, এক অদ্ভুত তামাটে অন্ধকার চাদরে মোড়া। মন বিষণ্ণ থাকলে আলোর অভাব চোখে পড়ে। সেন্টার থেকে বেরোনোর আগের মুহূর্তগুলো যতোবার মনে পড়ছিল, অক্ষম রাগ গুলিয়ে উঠছিল পেটের ভিতর। এরকম সময়ে যতোটা সম্ভব বাতাস টেনে নিতে হয় মগজে, শরীর হালকা করে দিতে হয়। আমিও সেটাই চেষ্টা করছিলাম। লোকটা অবশ্য হাত ধরেছিল, আর এগোয়নি। ওর অদৃশ্য আঙুল আমার বুকের আশপাশের শূন্যতায় কিছু খুঁজছিল। টের পেয়েছি আমি। মেয়েরা টের পায়।

Read more


মাঠের বাইরে যে লড়াইয়ের ইতিহাস গড়লেন ইরানের ফুটবলাররা এরপর নক আউট পর্যায়ে যাওয়া হবে কাব্যিক বিচার। ফুটবলের মত কাব্যিক খেলায় জীবন কি এইটুকু দেবে না? উত্তরের জন্য অপেক্ষা করতে হবে ৩০ নভেম্বর ভোররাত পর্যন্ত। সেইদিন মেসি - রোনাল্ডো - নেইমার তর্জা মুলতুবি রেখে দমবন্ধ উত্তেজনায় ইরানের সাহসী ফুটবলারদের সমর্থনে গলা ফাটাবে আমাদের এই ছোট্ট ফুটবলপ্রেমী পৃথিবীর সমস্ত গনতন্ত্রকামী মানুষ।

Read more


প্রথম ম্যাচে জাতীয় সঙ্গীতের সময় তাদের দেশের মেয়েদের সামাজিক স্বাধীনতার প্রশ্নে জাতীয় সঙ্গীতে নীরব থেকে অভিনব মানবিক প্রতিবাদ জানিয়ে ফুটবল বিশ্ব সহ মানবতাবাদী মানুষের হৃদয় জয় করে নিয়েছিল ইরানের ফুটবলাররা। কিন্তু তারা যদি বিশ্বকাপের মঞ্চে ভালো কিছু করে দেখাতে না পারে তাহলে নিঃসন্দেহে নিজেদের দেশের সরকারের রোষের শিকার যে তাদের কিছু মাত্রায় হতে হবে তা ইরানের খেলোয়াড়রাও ভালোই জানেন।

Read more


যাঁরা ইরানের ফুটবলাররা জাতীয় সংগীত গান নি বলে বাহবা দিচ্ছেন তাঁদেরও প্রশ্ন করা হচ্ছে রিহানা কৃষক আন্দোলনের সমর্থন করা ট্যুইটের প্রতিক্রিয়ায় যেসব ভারতীয় খেলোয়াড়রা উঠে পড়ে নেমেছিলেন সেই সময়টা এঁদের তরফ থেকে কোনও প্রতিবাদ চোখে পড়েনি কেন?

Read more


স্পেন এবং ব্রাজিল, এই বিশ্বকাপে যে দৃষ্টিনন্দন ফুটবল যে দেখাবে, তার উদাহরণ কিন্তু রেখে গেল প্রথম ম্যাচেই। এই খেলাটি যে একটি দলগত খেলা এবং কোনও একজন মেসি বা নেইমার নির্ভর নয়, তা আবারও প্রমাণিত হলো।

Read more


কাতার বিশ্বকাপের মঞ্চ প্রতিবাদের আরো কিছু নজির দেখছে। ইরানের মতো কাতারও একটি মৌলবাদী কট্টর ইসলামিক দেশ। সেইখানকার নানা প্রতিক্রিয়াশীল নিয়মকে বিভিন্ন দেশ থেকে আসা দর্শকদের ওপর শেষ মুহূর্তে চাপিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেছে কাতার সরকার। তারা বলেছে মেয়েদের কাঁধ খোলা বা হাঁটু দেখানো পোশাক না পরতে। স্টেডিয়ামে মদ্যপান করা যাবে না বলেও ঘোষণা করা হয়েছে। এর প্রতিবাদে অনেকেই কাতার বিশ্বকাপের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান বয়কট করেছেন। কাতার কি হয়ে উঠছে প্রতিবাদের মঞ্চ?

Read more


এ যেন একেবারে আর্জেন্টিনা-সৌদি আরব ম্যাচের রিপ্লে। ফলাফল স্কোরবোর্ডে হুবহু এক। জাপানের পক্ষে ২-১। মারাদোনার দেশের পর বেকেনবাওয়ারের দেশও ঠিক একইভাবে নিজেদের প্রথম ম্যাচে পরাজয়ের শিকার হল। জোয়াকিম লোর পর হ্যান্সি ফ্লিক জার্মানির কোচ হয়ে দলের খোলনলচে প্রায় পুরোটাই বদলে ফেলেছেন। কিন্তু এককালের ফিফা বিশ্বকাপের সবচেয়ে ধারাবাহিক দল গত বিশ্বকাপ থেকে যে ধারাবাহিকতার অভাবে ভুগছে তা যেন কাতারের মাটিতেও অব্যাহত।

Read more


আর্জেন্টিনা জিতলে ভাল লাগে। আর্জেন্টিনা হারলে ভালবাসা বেড়ে যায়। কী আজব সমীকরণ, আমি বুঝলাম না ব্যাপার! ফুটবল টেকনিক্যালিটিসের বাইরে গিয়েও ভালবাসার একটা নিজস্ব পৃথিবী আছে। সেখানে ছত্রিশ বছর, আঠাশ বছরের টিটকিরি নেই। স্বতন্ত্র ভাবে বেঁচে নিতে চাওয়া একটা দেশ আছে। ছেলেবেলা থেকে আজ অবধি নিজের মধ্যে গড়ে নেয়া ধারণারা আছে। যেখানে ঝুপ করে লুকিয়ে পড়া যায়। চাইলেই...

Read more


বিশ্বকাপের ইতিহাস বলছে এর আগে একমাত্র একবারেই নিজেদের প্রথম ম্যাচে হেরেও বিশ্বকাপ জিতেছে এমন দেশ একটিই। ২০১০-এর বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে সুইজারল্যান্ডের কাছে ০-১ গোলে পরাজিত হয়েও বিশ্বকাপ জিতেছিল দেল বস্কির প্রশিক্ষণাধীন তিকিতাকা স্পেন। আর ১৯৯০-এর ইতালি বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে রজার মিল্লার ক্যামেরুনের কাছে ০-১ গোলে হেরেও ফাইনালে পৌছে জার্মানির কাছে হেরে গিয়ে রানার্স হয়েছিল আর্জেন্টিনা। কিন্তু এবার কি তাই হবে?

Read more


এই ফুটবল মহোৎসবের মধ্যে, এত বৈভব, এত বর্ণাঢ্য আয়োজনের মধ্যে কোথাও যেন ধ্বনিত হচ্ছে পরিযায়ী শ্রমিকদের আর্ত চিৎকার। তাদের অধিকার লঙ্ঘন, তাদের জীবনের ঊপর দিয়ে কাতার সরকারের এই বিশ্বকাপ আয়োজন। বিশ্বকাপের আগেই যা সারা বিশ্বের সমালোচনার মুখে পড়েছিল। কাতার সরকার কিছুটা সংশোধন করলেও আইনের মূল পরিকাঠামো কিন্তু একই রয়ে গেছে। তাই গ্যালারীতে ফুটবলপ্রেমী মানুষের ফুটবল উন্মাদনার আওয়াজের মধ্যে যেন মিশে যাচ্ছে সেইসব পরিযায়ী শ্রমিকদের হাহাকার। একদিকে ইরানের খেলোয়াড়দের মানবিক প্রতিবাদ অন্যদিকে পরিযায়ী শ্রমিকদের যন্ত্রণাকাতর হাহাকার এ যেন মানবিকতা আর শোষণযন্ত্রের এক অদ্ভুত ঐতিহাসিক কোলাজ।

Read more


বিশ্বকাপের মুল পর্বের খেলা শুরু হয়ে গেছে। সারা পৃথিবীর মানুষ তাকিয়ে আছে কাতারের দিকে। কারা যাবে শেষ আটে, কারা যাবে শেষ চারে, সেই নিয়ে চলছে আলোচনা। তারই প্রাথমিক কিছু আলোচনা থাকলো সৌভিক ঘোষালের কলমে।

Read more


এসসি-এসটি-ওবিসি কোটা বাতিল করার দাবি আরএসএস বহুদিন ধরেই করে আসছে। ক্ষমতায় কে আছে না আছে সে কথা মাথায় রেখে তারা মাঝে মাঝে এবিষয়ে লুকোচুরি খেলা খেলে। কিন্তু আরএসএস’এর সমস্ত দীর্ঘস্থায়ী এজেণ্ডা বাস্তবায়নে একের পর পদক্ষেপ নিয়ে চলে ক্ষমতাসীন বিজেপি।

Read more


জন্মভূমির টানেই গ্রাম ছেড়ে একেবারেই যায়নি তবে আত্মীয়দের থেকে দূরে লুকিয়ে থাকে মেয়েটি-এ খবর জানতাম এবং ভাবতাম এমন এক মেয়ে তার একলা জীবনে এতো সমাজের এতো ‘গুণগুণা-না’ কি করে সহ্য করে! গ্রামের বাসিন্দারা কেউই তার গলার আওয়াজ পছন্দ করে না-এটাও জানতাম। ইচ্ছা করতো মেয়েটির স্যাঁতস্যাঁতে মাটির বারান্দার এক কোণে চুপ করে বসে থাকি। সারাদিন তার গতিবিধি দেখি। আমার প্রত্যাশার অভিপ্রায় একদিন বলেই ফেললাম। আপনার বাড়িতে একদিন যেতে চাই- আপনি কি আমাকে--?

Read more


স্লোগান গর্জনে পরিণত হচ্ছে। হাজার হাজার মানুষ আনন্দের সঙ্গে হেঁটে চলেছে, স্লোগানে গলা মিলাচ্ছে। এ এক অনন্য অভিজ্ঞতা। এই পদযাত্রায় হাঁটতে হাঁটতে তীব্র একটা অনুভূতি যেন হৃদয় ছুঁয়ে যায়।

Read more


পলাশ আর সফিকুল, দুটি আট বছরের বন্ধুর বড় হয়ে ওঠার দৈনন্দিন কিছু ছবি নিয়ে গল্প। দুটি পরিবার, একটি হিন্দু অপরটি মুসলমান, আক্ষরিক অর্থেই পাশাপাশি বাস। একটি উঠোন, মাঝে দরমার বেড়া দেওয়া পাঁচিল। একদিকের উঠোনে যখন পলাশের মা, ঝাড়ু দেন, পাশের উঠোনে তখন সফিকুলের দিদিও একই কাজ করে। গল্প এগিয়ে চলে এইভাবে। পলাশ আর সফিকুলের ছোট চোখ দিয়ে বড়দের চোখ খুলে দেন পরিচালক।

Read more


"একজন চমৎকার লোক, কিন্তু ভারতীয় রাজনীতির জন্য উপযুক্ত নয়", কয়েক মাস আগে পর্যন্ত তার সম্পর্কে আমার এটাই ধারণা ছিল। এবং তারপরে রাহুল ভারত জোড়ো যাত্রা-র ব্যানারে ভারতকে ঐক্যবদ্ধ করার ভাবনা নিয়ে কন্যাকুমারী থেকে কাশ্মীর পর্যন্ত ৩৫০০ কিলোমিটার পদযাত্রা শুরু করেন। একজন রাজপুত্র কি ৩৫০০ কিমি হাঁটেন, তাও এমন ধারাবাহিক ভাবে ? রাহুল গান্ধীর সঙ্গে ভারত জোড়ো পদযাত্রায় হেঁটে এসে লিখলেন দর্শন মন্দকর ।

Read more


সুর করে লক্ষ্মীর পাঁচালি পড়তে পড়তেই অযাচিত শব্দ কানে আসে ঊষারানির, যে-শব্দের উৎস নিয়ে তিনি নিশ্চিত নন, যেন দূরের কোনও মন্দির থেকে ভেসে আসছে ঘণ্টাধ্বনি। হয়ত-বা পূজায় বা পাঁচালির সুরে তিনি এমনই বিভোর যে ঘন্টাধ্বনি ছাড়া অন্য কোনও শব্দের কথা মাথাতেই আসে না। সেই শব্দ বা শব্দের অনুরণন পাঁচালির সুরকে অতিক্রম করবেই এত নাছোড়, যদিও সেই শব্দ আপাতত তাঁর বিচলনের কারণ হতে পারে না, ফলত ঊষারানি পাঁচালি থামান না, অবিকৃত রাখেন সুরও, কেবল সেই সুরের মধ্যে, পাঁচালির মধ্যে ঢুকে পড়ে সেই ধ্বনি।

Read more


সাংবিধানিক গণতান্ত্রিক ব্যবস্থার তিনটি অঙ্গ, আইনসভা, প্রশাসন ও বিচার ব্যবস্থা। সংবিধানের বিধিনিষেধের মধ্যে থেকে আইন প্রণয়ন করতে পারে আইনসভা, সেই আইন অনুযায়ী কাজ করার কথা প্রশাসনের। সুপ্রিম কোর্টের মতাদর্শ নিরপেক্ষ ও নির্ভীক বিচারকেরাই পারেন দেশে আইনের শাসনকে কার্যকরী করে তুলতে, শাসকের রক্তচক্ষু ও প্রলোভনকে উপেক্ষা করে। অতীতে ভারতীয় বিচারব্যবস্থা তথা সুপ্রিম কোর্ট বিশেষ ক্ষেত্রে নতজানু হয়েছে শাসকের কাছে (যেমন জরুরি অবস্থার সময়ে), কিন্তু সাম্প্রতিক অতীতে, গত ৮ বছরে বিচারব্যবস্থা তথা সুপ্রিম কোর্ট ক্রমাগত শাসকের আদালতে পরিণত হচ্ছে, কোর্টে সলিসিটর জেনারেল সরকার পক্ষের হয়ে যা বলেন অধিকাংশ ক্ষেত্রে সেটাই রায় হিসেবে প্রতিধ্বনিত হচ্ছে। সম্প্রতি দায়িত্ব নেওয়া প্রধান বিচারপতি ডি ওয়াই চন্দ্রচূড়ের আপাত প্রগতিশীল দৃষ্টিভঙ্গীর রায়গুলির বিপ্রতীপে রয়েছে বাবরি-অযোধ্যা সংক্রান্ত, বা বিচারপতি লোয়ার মৃত্যুর পুনর্তদন্ত সংক্রান্ত অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক রায়। সংবিধানের উপরে ফ্যাসিবাদি আক্রমণের এই সঙ্কটমুহূর্তে সুপ্রিম কোর্ট কী অবস্থান গ্রহণ করে তার উপরে ভারতীয় গণতন্ত্রের ভবিষ্যৎ বহুলাংশেই নির্ভর করছে।

Read more


প্রবল দক্ষিনপন্থী, অতি দক্ষিনপন্থী স্রোতের মুখে দাঁড়িয়ে উল্টোদিকে সাঁতার কাটতে সত্যিই সাহস লাগে, লাগে প্রান্তিক মানুষের রাজনীতির আভিজাত্যবোধের অহংকার। স্পন্সরশীপের তোয়াক্কা না করে, হার জিত, উন্নয়ন অবনমনের পরোয়া না করে ভালেকাস আর তার পরম ভালবাসার রায়ো ভালেকানো যেভাবে ফুটবলকে প্রতিস্পর্ধার রাজনীতির সঙ্গে সম্পৃক্ত করে চলেছেন তা আবারও মনে করিয়ে দিচ্ছে ফুটবল নিছক একটা খেলা নয়।

Read more


একদিকে ভারত সরকার বলছেন প্রাকৃতিক কৃষির প্রচারের কথা – সদ্য সদ্য এনেছেন ‘ন্যাশানাল মিশন অন ন্যাচারাল ফার্মিং’ – আবার পাশাপাশি এই জি এম এর বাজনা? জিএম ফসল জৈব কৃষিতে অনৈতিক। যেহেতু আগাছা নাশক দেওয়া হবে, তাই এর সঙ্গে মিশিয়ে চাষ করা যাবেনা কিছুই। গম-সরষে খুবই প্রচলিত মিশ্র ফসল।  এই দ্বিচারিতার উৎসই বা কী আর শেষই বা কোথায়?

Read more


পাঁচদিন কাটল। ঠিক পাঁচদিন নয়, আজ এই দুপুর অবধি সাড়ে চার। বাড়ি ফিরে গেলে পুরো পাঁচ দিন হবে। চারপাশে বড় হট্টগোল। সবাই যে খুব চেঁচামেচি করে, তা’ নয়। সবাই উদ্বিগ্ন। অসম্ভব চাপা টেনশন সকলের চোখেমুখে। কেউ এখানে হা হা করে হাসে না, প্রাণ খুলে আড্ডা মারে না, ফোনে হই হই করে কথা বলে না, গান শোনে না, এমনকি মোবাইলে কোনও ছবিছাবাও দেখে না। পার্বতী অন্তত তেমনটিই লক্ষ্য করেছে এই ক’দিনে। সবাই বিপর্যস্ত হয়ে দৌড়য়। নানান জিনিসের জন্য ছুটোছুটি করে। বিরাট লাইন, বহু জিজ্ঞাসা। কত টানাপোড়েন।

Read more


শিক্ষা ব্যবস্থার সামগ্রিক বেসরকারিকরণের ফলে শিক্ষা ব্যবসায়ীতে শিক্ষা জগত ভরে গেছে। ওই বন্দোবস্তে সঙ্গত করেছে কেন্দ্র রাজ্য সমস্ত ধরণের সরকারগুলি। যাঁরা সরকারি প্রতিষ্ঠানের বিষয়ে বিরূপ মন্তব্য করেন, কেবল সরকারি স্তরে দুর্নীতি নিয়ে মাথা ঘামান, তাঁরা বেসরকারি বা ব্যক্তি মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠানগুলির অন্তর্নিহিত দুর্নীতিগুলিকে দেখতে পান না, কারণ সরকারি কাজে ঘোটালা বা ব্যাঙ্কের অর্থ তছরূপ জাতীয় কাজ না করলে ওইসব দুর্নীতি দুর্নীতি নিরোধক আইনের আওতায় আসে না। কিন্তু ওই ব্যক্তি মালিকানাধীন প্রতিষ্ঠানগুলির মধ্যেই রয়েছে দুর্নীতির উৎস, পশ্চিমবঙ্গে শিক্ষক নিয়োগের দুর্নীতিও কোনো ব্যতিক্রম নয়।

Read more


আমি, শান্তনু দা এবং ইমতিয়াজ একমাত্র কলকাতা থেকে এসেছি এবং যাকেই আমরা বোঝানোর চেষ্টা করেছি যে আমরা বিশেষভাবে এতদূর এসেছি এই যাত্রায় অংশগ্রহণ করতে, বিস্ময়ে তাদের চোখ প্রশস্ত হয়ে গেছে। কর্ণাটকের কিছু সহযাত্রী যাদের সাথে আমি স্লোগান দেওয়ার সুযোগ পেয়েছিলাম তারা আমাকে ‘ম্যাডাম বাঙালি’ বলে সম্বোধন করছিলেন। মৌখিকভাবে আমরা একে অপরকে বুঝতে পারিনি ভাষাগত কারণে এবং বেশিরভাগ সময় সাংকেতিক ভাষায় যোগাযোগ করতাম কিন্তু যখন শ্লোগানের কথা আসে তখন আমরা সবাই জানতাম কেন আমরা এখানে ছিলাম। ‘জোড়ো জোড়ো’ ‘ভারত জোড়ো’ বা ‘জোডিসি জোডিসি’ ‘ভারত জোডিসি’ ই আমাদের যোগাযোগের মাধ্যম হয়ে উঠেছে যখনই আমরা দৌড়ের সময় যাদের কাছেই এসেছি তার সাথে ।

Read more