পড়শি যদি আমায় ছুঁতো যম যাতনা সকল যেত দূরে: লালন সাঁই

পড়শি যদি আমায় ছুঁতো যম যাতনা সকল যেত দূরে: লালন সাঁই

hhhhhhhhhhhhhh

অন্যান্য পোস্ট

এক অন‍্য আরণ‍্যকের সন্ধানে

বাংলায় লেটার পেয়ে আদিবাসী পরিবারে অঘটন ঘটিয়ে দেওয়া এক ষোড়শী লিখে চলেছে এক প্রত্যয়গাথা। তার মনে জোর যোগায় পথের পাঁচালির অপু।কেমন আছে দোবরুপান্নার ছোটবোন?এক অন‍্য আরণ‍্যকের সন্ধানে।

পোষ্টাল ব্যালটে বিদেশে বসবাসকারী ভারতীয়দের ভোট দেওয়ানো কেন ?

বিদেশে বসবাসকারী ভারতীয়রা সবাই কি এই বিজেপির রাজনীতি সম্পর্কে সম্যক জানেন, তাহলে কেন তাঁদের এই পোষ্টাল ব্যালটের মাধ্যমে ভোট দেওয়ানোর এতো তোড়জোড় ? তাহলে কি অবিজেপি রাজ্যগুলো দখল করে আগামী কয়েকবছরে সংবিধান বদল করে ভারতকে হিন্দু রাষ্ট্র ঘোষণা করাটাই বিজেপির উদ্দেশ্য ? নাগরিক পরিসর থেকেও কি এর বিরুদ্ধে আওয়াজ ওঠা জরুরী নয় ?

লাইটম্যান

ছেলেটাকে আমার সেই পুরনো পাড়াটা, আমার সেই ডাং-গুলি চোর-চোর খেলার দিনগুলিকে দেখানোর ইচ্ছে হচ্ছিল খুব। সেই সব ভাঙা পুকুর পাড়, কুলগাছ। সেই ফাঁকা প্লট, পাখির ডাক। এক সেই প্রাইমারি স্কুলটাই টিকে আছে কোনও মতে।

পিএম কিষাণ : শাসক-রাজনীতির ট্র্যাপিজে রিলিফের ঠমক

কৃষি ও কৃষকের উন্নতি যতটুকু সম্ভব, তা রিলিফ বা অনুদানের ব্যাপার নয়। তার জন্য কৃষিতে কৃষক-স্বার্থবাহী সংস্কার প্রয়োজন। কৃষি-উৎপাদন থেকে কৃষিপণ্যের বিপণন মায় কৃষকের ফসলের যথার্থ লাভজনক মূল্যের নিশ্চয়তা পর্যন্ত কৃষক-স্বার্থকে প্রাধান্যে রেখে প্রয়োজনীয় সংস্কার চাই।

নিয়মিত কলাম

বিত্তবানের খিদে ও লুইস বুনুয়েলের একটি ফিল্ম

বুনুয়েলের প্রায় সব ছবিতেই তিনি চার্চ আর বুর্জোয়া সমাজব্যবস্থাকে তীব্রভাবে আক্রমণ করেন। তিনি একাধিকবার বলেছেন এই দুটো প্রতিষ্ঠানের মধ্যে অন্তর্ঘাত ঘটানোই তার ছবির উদ্দেশ্য। অতএব তার ছবির আখ্যানের মধ্যে দেখা যায় এই অন্তর্ঘাতের কৌশলগুলি। দ্য এক্সটারমিনেটিং এঞ্জেলও ব্যতিক্রম নয়।

হুতোম প্যাঁচার নকশা: কালিদাসী কালচার

ভেবে দেকুন, যে বাঙালী অভিজিৎ বাঁড়ুজ্জের নোবেল প্রাইজ আর ঝিঁঝিঁ বোর্ডের প্রেসিডেন্টের চেয়ারটিকে সমান ভেবে কলকেতা জুড়ে হোর্ডিং ঝুলিয়েচে, তার কাচে অমর্ত্য সেন কল্কে পাবেন কী উপায়? বাঙালীর একন কালীদাসী কালচার। এবারের নকশা লিখলেন হুতোম প্যাঁচা।

আখ্যান

আনন্দধারা

আমাদের কুলদেবতা ভদ্র। তার ইচ্ছায় আমাদের গোষ্ঠীতে পড়াশোনার চল শুরু হয়েছে। মেয়েটির মৃত্যুর প্রসঙ্গে,যাঁরা আমাদের মধ্যে শিক্ষিত,তাঁরা পুনরায় মহান ব্যাক্তিদের উক্তি স্মরণ করলেন পৃথিবীতে শুধুমাত্র একটিই ভালো আছে,জ্ঞান। আর একটিই খারাপ আছে,অজ্ঞতা।

জাতীয় সঙ্গীত বদল - বিতর্কের উদ্দেশ্য কি ?

বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর বিরচিত "জন গণ মন অধিনায়ক" গানটি ১৯৫০ সালের ২৪শে জানুয়ারি জাতীয় সংগীত হিসাবে গৃহীত হয়। বিরোধিতা সত্ত্বেও স্বাধীন ভারতের প্রথম প্রধানমন্ত্রী জহরলাল নেহেরুর নেতৃত্বে, রাজেন্দ্র প্রসাদের উপস্থিতিতে কনস্টিটিউয়েন্ট এসেম্বলির প্রতিটি সদস্য সমবেত ভাবে "জন গণ মন" গেয়ে গানটিকে ভারতের জাতীয়সংগীত হিসাবে সিলমোহর দেন। এখন এটা বদলানোর চিন্তাভাবনা চলছে। কিন্তু তার উদ্দেশ্য কি?

লাভ-জিহাদ--স্বৈরতান্ত্রিক বিজ্ঞাপন

ক্ষমতার ষড়যন্ত্র ‘লাভ জিহাদ’। ইতিহাসে এক নতুন শব্দবন্ধের আমদানি। বাস্তব ও ব্যাখ্যায় খুব দূর্বল। ঘৃণা আর বিদ্বেষে ভরপুর। পীড়নের সন্তুষ্টি ও দমনের ইচ্ছাতে ষোলো আনা খুশি একপক্ষ। একের বিনাশেই আরেকের বিস্তার। ধর্ম আর রাজনীতি মিলেমিশে এক অন্ধগলিপথের দিশা দেয়। সেখানে স্বাধীনতা নেই, মনন নেই। নেই উত্তরণ।

এ-তনু ভরিয়া: দর্শন আপাদমস্তক/অরিন্দম চক্রবর্তী অনুষ্টুপ ২০২০

মহাভারতের ভীষ্মপর্বে আছে, শরীরে সর্বদা তিনের যুদ্ধ চলছে। এই ত্রিধাতুর সমতার নাম স্বাস্থ্য। আবার সত্ত্ব, রজো ও তমের সমতার নাম মানসিক স্বাস্থ্য। পিত্ত, শ্লেষ্মা ও বায়ুর সমষ্টিকে মহাভারতে ‘সঙ্ঘাত’ বলা হয়েছে। এই সঙ্ঘাতের সাম্যে দেহ সুস্থ থাকে। আয়ুর্বেদাচার্যরা তাই ত্রিধাতুকে ‘ঈশ্বর’ বলেছেন। ব্যাধির জন্ম শরীরে আর আধির জন্ম মনে। আধি-ব্যাধি কিংবা জরা শরীরে এসে বাসা বাঁধলে ঈশ্বর উড়ে চলে যান।

সবকা বিশ্বাসের বাকোয়াস

মোট আয় ২৬, ০০০ টাকা কিন্তু গত দশ বছরে ভোগ্যপণ্যের মুদ্রাস্ফীতি ঘটেছে প্রায় ১০০%। ফলে আগের খরচ বজায় রাখতে দরকার পড়ছে ৩৭,০০০ টাকা। সমস্ত হিসেব গুলিয়ে যাচ্ছে তাঁর। ওদিকে চিকিৎসার খরচ বেড়েই চলেছে। ওষুধের দাম বাড়ছে। নিজের ৭০ আর গিন্নির ৬৫ বছর বয়সে এটাসেটা লেগেই আছে। এতদিন পর্যন্ত টেনে টুনে চললেও আর পারা যাচ্ছে না। যখন অবসর নিয়েছিলেন, তাঁর বেতনকে কখনো কম মনে হয় নি, মনে হয়নি অবসরের পরে এমন কষ্টে পড়বেন।

চেনা ছবি

পরদিন সকলের উত্তেজনার নিরসন ঘটিয়ে এবার দু’জনে ফোন স্ক্রিনের সামনে এসে হাজির। আজ দোয়েল মিহিরের দেওয়া একটা সুতির টপ পরেছে। তাতে খুব সুন্দর কলকাতার কলেজ স্ট্রিটের ছবি আঁকা। দোয়েল কলেজ স্ট্রিট চেনে।মায়ের সঙ্গে গিয়েছে গেল বার।