পড়শি যদি আমায় ছুঁতো যম যাতনা সকল যেত দূরে: লালন সাঁই

পড়শি যদি আমায় ছুঁতো যম যাতনা সকল যেত দূরে: লালন সাঁই

hhhhhhhhhhhhhh

এ কি কেবলি ছবি?

  • 13 March, 2021
  • 0 Comment(s)
  • 363 view(s)
  • লিখেছেন : হুতোম প্যাঁচা
নও ছবি নও ছবি নও শুদু ছবি” মনে মনে গাইতে গাইতে পেট্রোল পাম্পে মেলা হুজ্জত কল্লেন। ছবিটবি ছিঁড়ে একাক্কার। কমিশন বল্লেন, ইউনেস্কো সেরা সেবকের লেবেল দিয়েচে বলে কোড অব কন্ডাক্ট মানবে না, চাদ্দিকে ছবি ঝোলাবে এ বা কি কতা? পেট্রোল পাম্প হতে ছবি সরাও বলচি। নইলে… নইলে… নইলে… খুব বকা দেয়া হবে। করোনা টীকাতেও প্রধান সেবকের ছবি কেন? এই নিয়ে এবারের হুতোম প্যাঁচার নকশা

গত সন হতে লাইন দেয়া আরম্ভ হয়েচে, এ সনেও খতম হবার লক্ষণ নেই। তবে গতবার সকলে সগগে যাবার লাইন দিচ্চিলেন, একন ভ্যাক্সিন নেবার লাইন হচ্চে। পরে ভোট দেবার লাইন দেয়া হবে। ভোটের জন্যে কোন কোন বাবুর তর সইচে না। প্রধানসেবকবাবু যেমন। তেনার দাড়ি জোড়াসাঁকো অব্দি একনো পৌঁছায়নি শুনে ভোট কমিশনের বাবুরো ভোটের তারিখ বলতে দেরী কল্লেন, সেবকবাবুর ছবি দেয়া পোস্টার ছাপা হতে আরো দেরী হচ্চে। এদিকে ভোটের মুখে লোককে সেবকের মুখ ভুলতে দেয়া হয় না। তাই ভ্যাক্সিনের সার্টিফিকেটে ছবি দেয়া শুরু হল।

তবে ছবির কপালে সকলি ভালো নয়। তেলের দাম একশো টাকা পার হয়েচে, সেই রাগ বাবুরো ছবির উপর ঝাড়লেন। ছবির দাড়ি দেবেন ঠাকুরের বাড়ি না পৌঁছিলেও দ্যাকা গেল গাড়িওলা বাবুরো ঠাকুরবাড়ির সবচে নামকরা সন্তানের ফিলোসফি বেশ আয়ত্ত করেচেন। “নও ছবি নও ছবি নও শুদু ছবি” মনে মনে গাইতে গাইতে পেট্রোল পাম্পে মেলা হুজ্জত কল্লেন। ছবিটবি ছিঁড়ে একাক্কার। কমিশন বল্লেন, ইউনেস্কো সেরা সেবকের লেবেল দিয়েচে বলে কোড অব কন্ডাক্ট মানবে না, চাদ্দিকে ছবি ঝোলাবে এ বা কি কতা? পেট্রোল পাম্প হতে ছবি সরাও বলচি। নইলে… নইলে… নইলে… খুব বকা দেয়া হবে।

তবে ছবি নিয়ে আতান্তরে কেবল প্রধানসেবকবাবু পড়েননি। কলকেতায় আটাশে এ কূল ও কূল দ্যাকা যায় না এম্নি মিটিং হল। সেকানে এক দাড়িটুপি মোছলমান ছোকরা এসে আর সকলকে ছবি করে দিলে। বাবু বিবি রে রে করে উঠলেন। ছোকরার পুরান ভিডিও ছবি বের করা হল। সেকানে ছবির বিবিদের সমন্দে সে কটি কুকতা বলেচে সে হিসেবের জাবেদা খাতা বানানো হল। কোন ভিডিওটি গোটা আচে আর কোনটি সুবিধে মতন কেটেকুটে নেয়া হয়েচে তা নিয়ে পলাশির দ্বিতীয় যুদ্ধ বেধে গেল। যে বাবু জন্মে ইস্তক লাল রং দেকলে ষণ্ডমূর্তি ধারণ করেন, তেনার সাথে লাইফে ফার্স্ট টাইম এগ্রি করে লাল বাবু বিবিরাও বামেদের মীরজাফর বল্লেন। গোলমালে সিরাজ কে সেটি শুনতে পারা গেল না। এক দল বল্লে বলেছিল লেনিনের দাড়ি দেবে, দিলে মোছলমানের দাড়ি; টুপি ফাউ। এটিও কি জুমলা নয়? ভিডিও ছবির পাল্টা ভিডিও ছবি এসে পল্ল। তাই দেকে, না দেকে ঘোষজা বোসজাকে ধান্দাবাজ বল্লেন, বোসজা ফিরে শুধোলেন ঘোষজার বাজারে দর কত চলচে।

বাবুরো একে অপরের ছবিতে কালি ছুঁড়চেন, এমন সময় গুপুস করে টলিউডে তোপ পড়ে গেল। এতক্ষণ মানুষের ছবি নিয়ে সকলে গোল কচ্ছিল, এবার ছবির মানুষ নিয়ে একত্র মোচ্ছব ও খেউড় আরম্ভ হল। ডিরেক্টর হতে ভাঁড়, হিরো হতে হিরোইনের পিতৃদেব, মায় ফিল্ম পাড়ার দু এক ল্যাম্পপোস্টও ভোটে দাঁড়াচ্চেন জানা গেল। টলিউড খালিউড হয়ে পড়চে দেকে আপনাদের মহানায়কের স্ট্যাচুটিকে শুধোলুম, কেমন বুঝচ? সে বল্লে, আমার সাজানো বাগান শুকিয়ে গেল। তবে ভরসার কতা একলা আমার বাগানটি শুকায়নি।

কতাটি সত্য। রাতে দেকতে পেলেম রাজ্যিসুদ্ধ নায়ক, উপনায়ক, মেগানায়ক, খলনায়ক ও নায়িকাদের সাজানো বাগান শুকিয়ে গ্যাচে। এক বাবু ফেসবুকে অভিমানী পোস্ট দিয়ে আপিস পোড়ালেন। আরেক মা জননীর কান্না দেকে হুতোমের পাতর হৃদয় দিনভর লোডশেডিং-এর ডিপ ফ্রিজে বরফের গোলার ন্যায় গলে গেল। একানে টায়ার পুড়চে, সেকানে চেয়ার ভাঙচে, ওদিকে দাদার নামে ফেস্টুন, এদিকে দিদির নামে ব্যানার। আপনাদের হুতোম মোবাইলে এসব দেখচে দেকে মহানায়ক শুধোলে, অ্যাকেবারে টাইটেল কার্ড থেকে অ্যাকশন শুরু হয়েচে। জব্বর এন্টারটেনমেন্ট হবে, নয়? বল্লেম কমেডি দিয়ে ছবির পর্দ্দা উঠেচে, হররে যবনিকা পতন না হলেই হয়।

0 Comments

Post Comment