পড়শি যদি আমায় ছুঁতো যম যাতনা সকল যেত দূরে: লালন সাঁই

পড়শি যদি আমায় ছুঁতো যম যাতনা সকল যেত দূরে: লালন সাঁই

hhhhhhhhhhhhhh

কাশ্মীরে যিশু

  • 09 August, 2019
  • 0 Comment(s)
  • 2614 view(s)
  • লিখেছেন : শামিম আহমেদ
যিশু নাকি কাশ্মীরে এসেছিলেন? কাশ্মীরের এক জনগোষ্ঠীর মানুষ দাবি করেন, তাঁরা যিশুর উত্তরপুরুষ।শ্রীনগরে আছে যিশুখ্রিস্টের সমাধি।কীভাবে যিশু এলেন কাশ্মীরে, কেনই বা এসেছিলেন? পুরাণ থেকে উত্তর খুঁজলেন শামিম আহমেদ।



কাশ্মীর নিয়ে রয়েছে নানা কাহিনি, উপকথা। যে স্থান যত সমৃদ্ধিশালী তার পুরাণও তত সমৃদ্ধ। মনে করা হয়, মহাপ্লাবনের সময় নোয়া বা নুহ নবির বানানো সেই বিরাট নৌকায় অনেকে ঠাঁই পেয়েছিলপ্লাবন থেকে মুক্ত হওয়ার পর-- নুহ নবির তিন পুত্র ইউরোপ, এশিয়া ও আফ্রিকায় চলে যানতাঁদের একজন হলেন হাম, যিনি এশিয়া মহাদেশে আসেনহামের পুত্র কাশকাশ্মীরের মনুষ্যজাতি সেই কাশের বংশধরআর একটি উপকথা হল, কাশ্মীরের আদি বাসিন্দারা নাকি ছিলেন নাগ, পিশাচ আর যক্ষআর্যরা যখন ওই উপত্যকায় যায়, তখন স্থানীয় বাসিন্দাদের একটি অংশ তাদের মেনে নেয়, বশ্যতা স্বীকার করেওই বাসিন্দারা হলহনুমানবানরজাতিআর এক পক্ষ আর্যদের বিরুদ্ধে ভীষণ প্রতিরোধ গড়ে তোলেতাদের নাম হয়নাগ আরপিশাচএরা সকলেই কাশের বংশধরকশ্যপ নামের এক ঋষির নাম কাশ্মীরের সঙ্গে যুক্তপাণিনির ব্যাকরণের মহাভাষ্য রচয়িতা পতঞ্জলি ছিলেন কাশ গোষ্ঠীর মানুষ, যিনি চরকের আয়ুর্বেদ পুনর্লিখন করেনকাশ্মীর শৈবচিন্তার পুরোধা বসুগুপ্ত, উৎপল, ক্ষেমরাজ, আনন্দবর্ধন, অভিনবগুপ্তরাও এই উপত্যকার মানুষ

তবে পুরাণের সব গল্পকে হার মানায় কাশ্মীরে যিশুআখ্যানকী সেই আখ্যান?

ক্রুশবিদ্ধ হওয়ার পর জীবন্ত যিশুকে কবরস্থ করা হয়তিনদিন তিন রাত ভূগর্ভে ছিলেন তিনিমথি বারো অধ্যায়ের চল্লিশ শ্লোকে বলা হয়েছে, ইউনুস নবি যেমন মাছের পেটে তিন দিন ছিলেন তেমনি ইসা তিন দিন তিন রাত ভূগর্ভে থাকবেনকিন্তু ভূগর্ভ থেকে বেরিয়ে তিনি কোথায় গেলেন?

বনি ইসরাইলদের দশটি গোত্রের সন্ধান পাওয়া যাচ্ছিল নাবনি ইসরাইল হল ইসরাইলের বংশইসরাইল হলেন ইবরাহিম বা আব্রাহামের পৌত্রইসরাইল অর্থাৎ ইয়াকুবের (ইয়াকুব ইসরাইলের আর একটি নাম) এগারোটি পুত্র ছিলইয়াকুবের বংশ হল বনি ইসরাইল বা ইসরাইলীয় বংশএই বনি ইসরাইলের দশটি গোত্র যাদের সালমানজের বাদশা শাহ অসুর বন্দি করে নিয়ে গিয়েছিল, তারা শেষ অব্দি ঠাঁই পায় ভারতবর্ষেসেই হারানো দশটি মেষের সন্ধানে যিশু বা ইসার ভারতে আসার প্রয়োজন ছিলএমন কথা পাওয়া যায় যে এ দেশে বনি ইসরাইলীয়রা এসে বৌদ্ধ হয়ে যায় এবং নানা রকমের উপাসনায় লিপ্ত হয়ে পড়েআফগানিস্তান ও কাশ্মীরের বাসিন্দারা আদতে নাকি ইহুদি ছিল, শাহ অসুরের সময় তারা এ দেশে আসেবৌদ্ধ ধর্মের ইতিহাসে ইসরাইলীয়দের হারানো মেষগুলোর কথা আছেমথি অনুযায়ী, যিশু বলছেন আমি জীবিত হয়ে গ্যালিলিতে যাবমৃত মানুষ আবার জীবিত হবে কী প্রকারে! অবশ্য ঈশ্বরের ইচ্ছা হলে তা ভিন্ন কথাআর যিশুকে যে আসমানে তুলে নেওয়ার কথা বলা হল, তা হলে তিনি জীবিত হয়ে গ্যালিলিতে যাওয়ার কথা বললেন কেন! গ্যালিলি তো আসমান নয়! বারনাবাসের কিতাবে আছে, যিশু ক্রুসবিদ্ধ হননি এবং ক্রুসে তাঁর মৃত্যু হয়নিমার্ক ইঞ্জিলে বলা আছে, যিশু অর্থাৎ ইসাকে কবর থেকে বের হয়ে গ্যালিলির রাস্তায় চলে যতে দেখা গিয়েছিল

যিশু ওই লোকদের সঙ্গে খেতে বসলেনতাঁর হাত ও পায়ের ক্ষতগুলি দেখে তাঁরা খুব চমকে গেলেনতারপর এক আশ্চর্য মলমে সেরে যায় সব ক্ষতযিশু জেরুজালেম থেকে যাত্রা শুরু করে নসিবাস ও ইরানের মধ্য দিয়ে আফগানিস্তানে পৌঁছন, সেখান থেকে কাশ্মীরকাশ্মীরের পূর্ব সীমানা তিব্বতের লাগোয়াতাই তিনি হারানো মেষের সন্ধানে তিব্বতও ঘুরে এসেছেন, এ রকম কথা শোনা যায়এর পর তিনি কাশ্মীরে স্থায়ীভাবে বাস করার সিদ্ধান্ত নেনতার আগে নাকি আফগানিস্তানে ছিলেন অনেক দিনএখনও আফগানিস্তানে এক জাতির সন্ধান পাওয়া যায় যাদের নাম ইসা-খায়লএর অর্থ ইসার সন্তানকাশ্মীরে এসে যিশু বিবাহ করেনএখনও কাশ্মীরে এক দল মানুষ দাবি করেন, তাঁরা ইসার বংশধরযিশু অর্থাৎ ইসা কাশ্মীরেই মারা যান এবং তাঁকে সমাহিত করা হয় শ্রীনগরেশ্রীনগরে তাঁর সমাধি পর্যটকদের এক দর্শনীয় স্থানইসাকে যেখানে ক্রুসবিদ্ধ করা হয়েছিল বলে জনশ্রুতি, সেই জায়গার নাম গিলগিটগিলগিটহল মাথার খুলির স্থানমথি, মার্ক, লুক এবং জনে সেই প্রমাণ পাওয়া যায়আবারশ্রীনগর-এরশ্রীশব্দটির হিন্দি-অভিধানে অর্থ করা হয়েছে মড়ার মাথাআরনগরমানে স্থান

শেষ যুগে, কেয়ামত আসন্ন হলে, যিশু দু জন দেবদূত কাঁধে হাত রেখে দামাস্কার মিনারার কাছে নামবেন

(সমস্ত বিষয়টি পৌরাণিক আখ্যান থেকে নেওয়াসত্য/মিথ্যা, বিশ্বাস বা অবিশ্বাসের প্রশ্ন তাই ওঠে না)  

0 Comments

Post Comment